skip to Main Content

ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীর বক্তব্য

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

সম্মানিত শেয়ারহোল্ডারবৃন্দ ও পরিচালকবৃন্দ,

আস্সালামু আলাইকুম।

এশিয়া ইন্সুরেন্স লিমিটেডের ১৯তম বার্ষিক সাধারণ সভায় আপনাদের স্বাগত জানাতে পেরে আমি আনন্দিত। আমি প্রধান নির্বাহী হিসেবে ৪র্থ বারের মতো কোম্পানীর বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করতে যাচ্ছি। আপনারা জানেন ৪৫ টি বেসরকারি নন-লাইফ বীমা কোম্পানি একই শ্রেনীর ব্যবসা প্রাপ্তির জন্য বীমা বাজারে কাজ করছে এবং আমরা প্রত্যেকে সেই ব্যবসা প্রাপ্তির জন্য প্রতিনিয়ত তীব্র প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হচ্ছি। অনেক চ্যালেঞ্জ স্বত্ত্বেও বিগত কয়েক বছরের ন্যায় ২০১৮ সালটি আমাদের নিবেদিত কর্মীবাহিনীর কর্মনিষ্ঠা এবং দেশ বরেণ্য বিজ্ঞ পরিচালক মন্ডলীর নির্দেশনায় আপনাদের কোম্পানি সফলতার আরো একটি বছর অতিক্রম করল। সময়ের পরিক্রমায় ধারাবাহিকভাবে আমাদের এশিয়া ইন্সুরেন্স গুরুত্বপূর্ণ Indicator বা সূচকে ক্রমাগতভাবে অগ্রসরমান।

আপনাদের সদয় অবগতির জন্য কোম্পানীর ২০১৮ সালের সঙ্গে ২০১৭ সালের তুলনামূলক কার্যক্রম তুলে ধরেছি।

উল্লেখ্য বীমা বাজারে ব্যবসা সংগ্রহে লাগামহীন প্রতিযোগিতা চলমান থাকলে এবং ব্যাংকিং খাতে অস্থিরতা বা তারল্য সংকটের চাপ বৃদ্ধি পেলে ২০১৯ সালটি বীমা খাতের জন্য খুবই চেলেঞ্জিং বছর হবে। তবে আশার কথা হচ্ছে, বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ নন-লাইফ বীমা কোম্পানীর লাগামহীন কমিশন প্রদানের প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে এবং বীমা খাতকে আরো সুশৃংখল ও শক্তিশালী করার জন্য কতগুলো যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহন করতে যাচ্ছেন। আমরা সংশ্লিষ্ট সকলে মিলে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের উক্ত পদক্ষেপ কার্যকর করতে পারলে দেশের বীমা খাত হবে অন্যতম একটি শক্তিশালী এবং লাভজনক খাত। পাশাপাশি দেশের জিডিপিতে বীমা খাতের অবদানের পরিমানও বৃদ্ধি পাবে। তখন সম্মানিত শেয়ারহোল্ডারদের আরো সন্তোষজনক ডিভিডেন্ট প্রদান করা সম্ভব হবে।

সকল পর্যায়ের ক্লাইন্টদের সঙ্গে চমৎকার সম্পর্ক এবং দ্রুত বীমা দাবী নিষ্পত্তি ও বীমা গ্রহীতাকে উত্তম সেবা প্রদানের কারনে আমাদের এশিয়া ইন্সুরেন্স লিমিটেড দেশের বীমা বাজারে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ অবধি তার সুনাম ও মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে সক্ষম হয়েছে এবং একটি দৃঢ় আর্থিক ভিতের উপর দাঁড়িয়ে ভবিষ্যৎ প্রবৃদ্ধির জন্য একটি বলিষ্ঠ প্লাটফরম নির্মান করতে সক্ষম হয়েছে।

আমি ২০১৮ সালকে আরো একটি সাফল্যের বছরে পরিনত করার জন্য সকল সম্মানিত শেয়ারহোল্ডার ও বীমা গ্রাহককে তাদের গভীর বিশ্বাস ও অবিচল আস্থা জ্ঞাপনের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। সারা বছর ধরে বিচক্ষন নির্দেশনা ও পরামর্শ

বিষয়২০১৮২০১৭প্রবৃদ্ধি (টাকা)
মোট প্রিমিয়াম আয়৬১,৭০,৩২,৬৫৪৫০,৮০,০৮,৯৮৪২১.৪৬%
নীট প্রিমিয়াম আয়৪২,২২,৩৭,৪৪৩৩৩,৯৯,৫৭,০৪৫২৪.২০%
আন্ডারাইটিং মুনাফা৯,৬৬,২২,৮১৭৬,১৫,৬২,৯৭১৫৬.৯৫%
কর পূর্ব মুনাফা৯,৩৭,৮৭,৩৫৭১১,৭৪,২০,১২৩(২০.১৩)%
কর পরবর্তী মুনাফা৬,৬৩,৭৬,৮১০৮,৩২,৩৪,৪৩৫(২০.২৫)%
এফ.ডি.আর৬৮,৭০,৬৫,২১২৬৫,১৭,৮৪,২১৩৫.৪১%
মোট সঞ্চয় তহবিল২৫,৭০,৪৪,৬৩২২২,৮২,৮৯,৭৯৯১২.৬০%
মোট সম্পদ১৬১,৬৮,০১,৬৮২১৫৪,৬৮,০৮,৬৯১৪.৫২%

আপনারা আরো জেনে আনন্দিত হবেন যে, এশিয়া ইন্সুরেন্স লিমিটেড ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে সমাপ্ত অর্থ বছরের আর্থিক বিবরনীর জন্য ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশনস্ সার্ভিসেস্ লিমিটেড কর্তৃক ডাবল এ- (এএ-) রেটিং এ ২য় বারের মত ভুষিত হয়েছে। এ ধরনের রেটিং এর অর্থ হচ্ছে কোম্পানীর অতি উচ্চ দাবী পরিশোধের সক্ষমতা, ভাল আর্থিক কর্ম দক্ষতা এবং চমৎকার দায়-দেনা পরিশোধ ক্ষমতা।

প্রদানের জন্য আমি পরিচালক মন্ডলীর সম্মানিত সদস্যদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি এবং আগামীতেও আপনাদের সর্বান্তকরনে সংশ্লিষ্ট সকলের সর্বাত্তক সহযোগিতা কামনা করছি।

পরিশেষে, আমি কোম্পানীর যাবতীয় কার্যক্রম সুচারুরূপে পরিচালনা করার জন্য আমার প্রিয় সহকর্মী, সম্মানিত শেয়ারহোল্ডার, সম্মানিত বীমা গ্রহীতা ও শুভানুধ্যায়ী এবং সকল নিয়ন্ত্রনকারী কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আগামী দিনগুলোতে আমাদের কোম্পানীর অব্যাহত প্রবৃদ্ধি, সমৃদ্ধি ও সুনাম রক্ষার প্রচেষ্টায় পরম করুণাময় মহান আল্লাহ্তা’য়ালা সহায় হউন। আপনাদের সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

ধন্যবাদ ও আল্লাহ্ হাফেজ।

মোঃ ইমাম শাহীন, এবিআইএ
ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী